কোকাকোলার মজার ও অজানা কিছু তথ্য

0
1004

 

এখন পর্যন্ত উৎপাদিত কোকাকোলার ৮ আউন্সের বোতল সবগুলোকে যদি পাশাপাশি এক প্রান্তের সাথে আরেক প্রান্ত লাগিয়ে শেকলের মত করে রাখা হয় তাহলে অন্তত ১০০০ বার চাঁদে আসা যাওয়ার সমান লম্বা হবে। একই ভাবে এ যাবত কালে উৎপাদিত হওয়া সব কোকাকোলার চেইন বানালে পুরো পৃথিবী ৪০০০ বারের বেশি ঘুরে আসা যাবে।
এখন পর্যন্ত উৎপাদিত কোকাকোলার সব বোতল যদি মানুষের মাঝে বিলি করা হয় তাহলে প্রত্যেকে ১০০০ টির বেশি বোতল পাবে।
পুরো বিশ্বে প্রতি সেকেন্ডে প্রায় ৮০০০ গ্লাসেরও বেশি কোকাকোলা খাওয়া হয়ে থাকে।
এ যাবত কালে উৎপাদিত সব কোকাকোলা ঢেলে যদি একটি সুইমিং পুল বানানো হতো তাহলে সেই সুইমিংপুলের দৈর্ঘ্যে প্রায় ৩০ মিলোমিটার ও প্রস্থে ১৫ কিলোমিটার হতো। এর গভীরতা হতো ২০০ মিটার। এই সুইমিং পুলে প্রায় হাফ বিলিয়ন মানুষ গোসল করতে পারবে।
কোকাকোলা ব্র‌্যান্ড কোক ছাড়াও আরো প্রায় ৩৫০০ রকমের বেভারেজ তৈরি করে। প্রতিদিন অন্তত ৩টা করে বেভারেজ খেলেও সবগুলোর স্বাদ নিতে আপনার ৩ বছরেরও বেশি সময় লাগবে।
পৃথিবীর ৯০% মানুষই কোকাকোলার লাল লোগোটি চেনে।
কোকাকোলার একটি সার্ভিং এ ৩৯ গ্রাম চিনি থাকে। তার মানে বেশির ভাগ আমেরিকানই বছরে প্রায় ৫ কেজি চিনি খায় শুধু মাত্র কোকাকোলা পান করার মাধ্যমেই।
কোকাকোলা বিজ্ঞাপনের পেছনে প্রচুর অর্থ খরচ করে। ২০১১ সালে এই খরচ ৩ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে গিয়েছিলো।
কোকাকোলার ফেসবুক পেজে ৭০ মিলিয়নের বেশি ফ্যান আছে এবং প্রতিনিয়ত এই সংখ্যা বেড়েই চলেছে।