বিয়ের উপযুক্ত হয়েছেন আপনি যেভাবে বুঝবেন

0
745
স্বর্গ হতে আসে প্রেম স্বর্গে যায় চলে প্রেমের চিরন্তন শিখা চিরদিন জ্বলে। এই প্রবাদটি আগেকার দিনে প্রেমিক-প্রেমিকারা মনে প্রাণে বিশ্বাস করলেও বর্তমান যুগের প্রেমিক-প্রেমিকারা এটা বিশ্বাস করে না বললেই চলে। মোবাইল, ফেসবুক, ইয়াহু, হটমেইল, জিমেইল, স্কাইপের এ যুগে প্রেম মোবাইলের ব্যালান্সের মতো। মোবাইলের ব্যালান্স যেমন এই আছে এই নেই তেমনি আজকালকার প্রেমও এই আছে এই নেই। আজকালকার প্রেমিক-প্রেমিকাদের নিয়ে যে ইতিহাসই হোক না কেন শিরি-ফরহাদ, লাইলী-মজনু টাইপের ইতিহাস যে লেখা যাবে না তাতে বিন্দুমাত্র সন্দেহ নেই। থেরাপির সব পাঠকের জন্য এ সপ্তাহের আয়োজন, যেভাবে বুঝবেন আপনি প্রেম করার উপযুক্ত হয়েছেন। প্রিয় পাঠক, তো চলুন জেনে নেই কিভাবে বুঝবেন আপনি প্রেম করার উপযুক্ত হয়েছেন।

১. সহজ-সরল বোকা টাইপের কাউকে দেখলেই আমরা গাধা বলে খোঁচা দেই। কিন্তু গাধা টাইপের ছেলেদের মেয়েরা অনেক পছন্দ করে। কারণ চারপেয়ে গাধাকে যেমন ইচ্ছামতো চালানো যায় তেমনি গাধা টাইপের প্রেমিককেও ইচ্ছামতো নাকে দড়ি দিয়ে ঘোরানো যায়। আপনি যতই চালাক হোন না কেন এই গাধার মতো খাটতে গিয়ে যা যা করতে হবে

ক. নিজের পড়াশোনা বাদ দিয়ে প্রেমিকার জন্য বন্ধু, বড় ভাইদের হাত-পা ধরে নোট সংগ্রহ করতে হবে।

খ. মাছি আর প্রেমিকার মধ্যে মিল হচ্ছে মাছি বিরতিহীনভাবে ভনভন করতে পারে আর প্রেমিকারা বিরতিহীনভাবে বকবক করতে পারে। গাধা যেমন মনিবকে পিঠে চড়িয়ে হাঁটতে থাকে, তেমনি ঘণ্টার পর ঘণ্টা কোনো রকম বিরক্তি প্রকাশ না করে প্রেমিকার বকবক শোনার ধৈর্য থাকতে হবে।

গ. মেয়েদের সাজুগুজু করতে যেমন কয়েক ঘণ্টা লাগে তেমনি চুলের একটি কিপ/লিপস্টিক/টিপ/নখপালিশ কিনতে গেলেও মেয়েদের কয়েক ঘণ্টা লাগে। জামার সাথে কালার মিলিয়ে কিপ/লিপস্টিক/টিপ/নখপালিশ কেনার জন্য শপিং সেন্টারের সব দোকান ঘুরে শেষে দেখা যায় প্রথমে যে দোকানে গেছে সে দোকান থেকেই নিয়েছে। এ নিয়ে প্রেমিকার ওপর রাগ দেখানো যাবে না। উল্টো নরম হাসি দিয়ে বলতে হবে, জানু তোমার মন মতো না হলে নিয়ো না চলো অন্য মার্কেটে দেখি।

ঘ. প্রেমিকের মোবাইল নম্বর বিজি দেখলে কিংবা ওয়েটিং দেখলে প্রেমিকা যা বলবে তাই বিশ্বাস করতে হবে কোনো প্রশ্ন না করে। কিন্তু আপনার মোবাইল নম্বর বিজি/ওয়েটিং দেখলে আপনার ১৪ গোষ্ঠীর এমনকি আপনার পোষা কোনো প্রাণী থাকলে সে প্রাণীর কসম করে বলতে হবে কার সাথে এতক্ষণ কথা বলেছেন।

২. আকাশেতে লক্ষ তারা চাঁদ কিন্তু একটারে… জনপ্রিয় বাংলা ছবি ‘কুলি’র এই গানটির মতো প্রেমিকারাও চায় প্রেমিক তাকে আকাশের চাঁদের মতোই ভাবুক। ভাবছেন শুধু ভাবলেই কাজ শেষ? বাবার মানিব্যাগে, মায়ের আলমারিতে মাঝে মধ্যে হাত চালাতে হবে কিংবা টিউশনি করে টাকা কামিয়ে যা যা করতে হবেÑ

ক. মাসে কয়েকবার ভালো রেস্টুরেন্টে খাওয়াতে হবে।

খ. প্রেমিকার মোবাইলে টাকা ট্রান্সফার করতে হবে।

গ. জন্মদিন, ঈদ, পূজায়, পয়লা বৈশাখ, ভালোবাসা দিবসসহ যত ভালোবাসাবিষয়ক দিবস আছে সব দিবসে প্রেমিকাকে গিফট দিতে হবে।

ঘ. দেখা হলে প্রেমিকার পরনের পোশাক, পোশাকের কালার, ঠোঁটের লিপস্টিক, কপালের টিপ পছন্দ হোক না হোক উল্লাসিত উচ্চারণে প্রশংসা করতে হবে কিছুক্ষণ পর পর। প্রশংসা হতে পারে এমন, ইস আমার জানটাকে টিপটা কী সুন্দর যে মানিয়েছে/আমার টিয়া পাখিটার চয়েস এত সুন্দর কেন/তোমার ব্যক্তিত্ব, পোশাক-আশাকের রুচিবোধ দেখে আমার বন্ধুরা তাদের প্রেমিকাকে বলে, আমার বন্ধুর প্রেমিকার এক ভাগ গুণ পেলেও তোমাকে পূজা করতাম।

৩. বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় একটি ওয়েব সাইটে কয়েক মাস আগে একটি ফিচারে দেখা গেছে প্রেমের সম্পর্কের কারণে কাছের বন্ধুদের সাথে দূরত্ব সৃষ্টি হয় এবং বন্ধুদের সাথে সম্পর্কও নষ্ট হয়। শুধুই কি বন্ধুদের সাথে দূরত্ব সৃষ্টি কিংবা বন্ধুত্ব নষ্ট হয়? আরো অনেক কিছুই নষ্ট হয়। যেমনÑ

ক. প্রেমিকার জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা পার্কে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।

খ. রাতজেগে প্রেমিকার ১৪ গোষ্ঠী থেকে প্রেমিকাদের বাসায় কোনো দিন ইঁদুর দেখা গেছে কিংবা প্রেমিকাদের বাসার বিড়ালটা প্রেমিকাকে কতটা পছন্দ করে কিংবা প্রেমিকার কোন বান্ধাবটা কেমন ইত্যাদি যত সব আজাইরা প্যাঁচাল আছে সব শুনতে হবে ঘুমের তেরটা বাজিয়ে।

গ. প্রেমিকার সাথে ঝগড়ার কারণে মেজাজ চরম খারাপ থাকার কারণে বাসায় ভাইবোনের সাথে ঝগড়া হতে পারে।

ঘ. পরীক্ষার রেজাল্ট খারাপ হতে পারে।