প্রাকিতিক উপায়ে ভুরি কমানর উপায়

0
803

কোমরে ভাঁজে ভাঁজে স্তরীভূত মেদ? আপনার আগে, আপনার ভুঁড়ি চলে? কিছুতেই কমাতে পাচ্ছেন না? ভেঢপ চেহারায় হীনম্মন্যতায় ভোগেন? হতাশ না হয়ে, একবার এই পানীয় ট্রাই করে দেখতে পারেন। সাইজ জিরো না হোক, ছিপছিপে বা কাঙ্ক্ষিত ফিগার পেয়ে যেতে পারেন। শুধু, এক গেলাস রোজ নিয়ম করে খেলেই হল। দিনে এক সেন্টিমিটার করে কমবে। শুধু মেদই ঝরাবে না, আপনার স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর পাশাপাশি মস্তিষ্ককেও চনমনে রাখতে সাহায্য করে।
ভাবছেন তো, কী পানীয়? খরচ কেমন? আপনি রোগা হতে রোজ যা খরচ করেন, তার চেয়ে কম বই তো নয়।

উপকরণ:
* দু-চামচ অ্যাপল সিডার ভিনিগার
* এক চামচ মধু
* এককাপ তাজা আঙুরের রস

এই তিনটি উপকরণকে একত্রিত করে, ভালো করে মিশিয়ে নিন। দুপুরে বা রাতে খেতে বসার আগে টানা এক সপ্তাহ কিন্তু এই মিশ্রণটি আপনাকে খেতে হবে। এর পর একসপ্তাহ বাদ দিন। তার পর আবার একসপ্তাহ একই ভাবে আপনাকে খেতে হবে। যতদিন না কাঙ্ক্ষিত ফল পাচ্ছেন, মানে, আপনি যেমনটি চাইছেন, তেমন না হচ্ছে, এ ভাবেই খেয়ে যান। ঝরিয়ে ফেলুন কোমরের ভাঁজে ভাঁজে জমে থাকা মেদ।
এটা হতেই পারে রোজ রোজ আঙুরের রস আপনার ভালো লাগছে না। বা আঙুর খেতে পছন্দ করেন না। বিকল্প হিসেবে তাজা কমলালেবুর রস দিয়েও এই মিশ্রণটি বানিয়ে নিতে পারেন। একই ফল পাবেন।