জেনে নিন ‘না’ বলতে শেখার খুব ভালো কিছু উপায়

0
658

 

মানুষকে না বলতে পারার মধ্যে কোনো ধরণের লজ্জা না থাকাই উচিত। কারণ মাঝে মাঝে অতিরিক্ত ভদ্রতা করে আমরা কাউকে না বলতে না পেরে অনুরোধের ঢেঁকি গিলে থাকি। কাউকে না বলতে পারাটা মাঝে মাঝে বিবেকে বাঁধলেও নিজের ভালোর জন্য না বলতে শেখা উচিত।

যে কাজটি আপনি সত্যিকার অর্থেই করতে পারবেন না বা আপনার জন্য কাজটি অনেকটা বোঝা ধরণের হয়ে যাবে সে ক্ষেত্রে না বলে দেয়াটাই কি উত্তম নয়? কারণ কাজটি যদি পরবর্তীতে আপনার করতে সমস্যা হয় তাহলে কিন্তু তিনি আপনার অপারগতাটি বুঝতে পারবেন না বরং মানুষটির চোখে আপনি খারাপ হয়ে যাবেন। তাই কিছু ক্ষেত্রে না বলতে পারা শিখে নেয়া উচিত। কিন্তু এই কাজটি অনেকেই করতে পারেন না। না বলতে না পেরে পরে বিপদে পড়ে যান। তাই আজকে শিখে নিন কীভাবে নিজে বিপদে না পড়ে মানুষকে না বলবেন।

১) নিজের নরম মনটাকে একটু দমিয়ে নিন

প্রথমেই পরিবর্তন আনুন নিজের মধ্যে। অনেকেই আছেন যারা বেশি নরম স্বভাবের হয়ে থাকেন এবং সহজে মুখ দিয়ে না শব্দটি বলতে পারেন না। কিন্তু অদূর ভবিষ্যতের কথা ভেবে হলেও নিজের মনকে দমিয়ে নিয়ে না বলে দিন।

২) নিজের সমস্যা নিজে বোঝার চেষ্টা করুন

অনেকেই আছেন নিজে সমস্যায় পড়ে যান না বলতে না পারার জন্য। তাই প্রথমে একটু স্বার্থপর হয়ে নিজের কথাটিই ভাবুন। যদি কাজটি করতে গিয়ে আপনি অনেক বেশি সমস্যায় পড়ে যান তাহলে নিজের আবেগটাকে বাড়তে না দিয়ে না বলে দিন।

৩) মিষ্টি হেসে বুঝিয়ে বলুন

অনেক সময় ভাবা হয় মুখের উপর না বলে দিলে সামনের মানুষটি কী ভাববেন তা নিয়ে। তাহলে একটু কথার কৌশল খাটান। খুব মিষ্টি ভাষায়, হেসে বুঝিয়ে বলুন কেন আপনি পারবেন না। যদি তিনি আপনার আপন কেউ হন তাহলে অবশ্যই তিনি আপনার অপারগতা বুঝবেন।

৪) তবে সব সময় সব কিছুতে না বলবেন না

আপনাকে স্বার্থপর হতে বলা হলেও এমন বেশি স্বার্থপর হবেন না যেন যে কাজটি আপনাকে দ্বারা সম্ভব, সেটিও আপনি করতে পারবেন না বলে দিলেন। কারণ এতে আপনার নিজেরই ক্ষতি। যখন আপনার এমন কোনো দরকার হবে তখন আপনি কাউকে পাবেন না। সুতরাং না তখনই বলুন যখন আপনি একেবারেই অপারগ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here